28 C
Dhaka
শনিবার, অক্টোবর ২৪, ২০২০

অনলাইন টিভি

Bangladesh
397,507
কোভিড-১৯ সর্বমোট আক্রান্ত
Updated on October 24, 2020 10:56 PM
Home রাজশাহী স্কুল শিক্ষার্থীদের ঘরে বসে পরীক্ষার নামে অর্থ আদায়

স্কুল শিক্ষার্থীদের ঘরে বসে পরীক্ষার নামে অর্থ আদায়

পুঠিয়া প্রতিনিধি : রাজশাহীর পুঠিয়ায় বেশীর ভাগ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ঘরে বসে পরীক্ষা নেয়ার নামে শিক্ষার্থীদের নিকট থেকে অর্থ আদায়ের অভিযোগ উঠেছে। শিক্ষকরা বলছেন, শিক্ষার্থীদের বাড়িতে যাতায়াত খরচ ও স্কুলের বিদ্যুৎ বিলসহ আনুষঙ্গিক খরচ মেটাতে কিছু টাকা নেয়া হচ্ছে। এ সকল ঘটনায় শিক্ষকদের বিরুদ্ধে চরম ক্ষোভ প্রকাশ করছেন অভিভাবকরা।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, পুরো উপজেলা জুড়ে নিম্ন ও উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয় রয়েছে ৪৮ টি। করোনার মহামারির কারণে দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দীর্ঘ সাড়ে তিন মাস বন্ধ রয়েছে। যার কারণে বেশীর ভাগ শিক্ষার্থীরা লেখাপড়ায় অমনোযোগী হয়ে উঠেছে। তাদের গতানুগতিক পাঠ মনোনীবেশ রাখতে প্রত্যক শিক্ষার্থীর ঘরে বসে পরীক্ষার নেয়ার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

ইতি মধ্যে সকল প্রতিষ্ঠান ঘরে বসে পরীক্ষার সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করেছেন। চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে ঘরে বসে পরীক্ষার কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

অভিভাবকদের অভিযোগে জানা গেছে, উপজেলার পুঠিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, ঝলমলিয়া হাই স্কুল, বিড়ালদহ সৈয়দ করম আলী হাইস্কুলসহ বেশীর ভাগ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঘরে বসে পরীক্ষার জন্য শিক্ষার্থীদের নিকট থেকে ফিস আদায় করছেন। কোনো কোনো প্রতিষ্ঠান বাড়িতে প্রশ্নপত্র আনা নেয়ার যাতায়াত খরচও আদায় করছেন। আবার কিছু প্রতিষ্ঠান স্কুলের বিদ্যুৎ বিল ও আনুষঙ্গিক খরচও নিচ্ছেন। এর মধ্যে কোনো কোনো বিদ্যালয়ে শ্রেণি ভেদে ৬০ টাকা থেকে ১০০ টাকায় আদায় করা হচ্ছে।

পুঠিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুস সাত্তার বলেন, শিক্ষার্থীদের ঘরে বসে পরীক্ষা নিতে গেলে শিক্ষকদের যাতায়াত খরচ হয়। তার জন্য আমরা শিক্ষার্থীদের নিকট থেকে কিছু টাকা নিচ্ছি।

ঝলমলিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি আবু বাক্কার বলেন, পরীক্ষার নেয়ার জন্য কিছু খরচাপাতি হয়। তাছাড়া প্রতিষ্ঠানের বিদ্যুৎ বিলসহ কিছু ব্যায় মেটাতে শিক্ষাথীদের নিকট থেকে মাসিক বেতন ও পরীক্ষার ফি নেয়া হচ্ছে।

বিড়ালদহ এস.কে.এস বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কোরবান আলী বলেন, আমরা শিক্ষার্থীদের নিকট থেকে প্রতি বিষয়ে মাত্র ২টাকা করে নিচ্ছি। এই টাকা নেয়ার কোনো নিয়ম আছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, সব কিছু কি নিয়মের মধ্যে হয়?

এ ব্যাপারে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা জাহিদুল হক বলেন, করোনার কারণে দীর্ঘদিন থেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলো বন্ধ রয়েছে। সে কারণে অনেক শিক্ষার্থীরা লেখাপড়ায় অমনোযোগি হয়ে যাচ্ছে। এর মধ্যে নতুন অনেক শিক্ষার্থীরা আছে যারা স্কুৃলটি ভালো করে দেখারও সুযোগ হয়নি। যার কারণে শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ায় আগ্রহ বাড়াতে তাদের বাড়িতে ঘরে বসে পরিক্ষায় দেয়ার একটা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

তবে এই পরীক্ষায় ফিসের নামে কোনো অর্থ আদায়ের সুযোগ নেই। ইতিমধ্যে আমি সকল প্রতিষ্ঠানকে টাকা না নিতে নির্দেশ দিয়েছি। তবে যদি কোনো প্রতিষ্ঠান অর্থ আদায় করেন তাহলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Most Popular

কমিউনিস্ট পার্টির একশ বছর-মানবমুক্তির লড়াইয়ে অনিবার্য

১৭ অক্টোবর। ভারতীয় উপমহাদেশের কমিউনিস্ট আন্দোলনের এক অবিস্মরণীয় দিন। ১৯২০ সালের এই ১৭ই অক্টোবরে উপমহাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির গোড়াপত্তন হয়েছিল সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের...

বন্ধু রাষ্ট্রের এ কেমন উপহার!

সীমান্ত শব্দটি শুনলেই গা কেমন শিউরে উঠে। চোখের সামনে ভেসে উঠে বন্দুক হাতে সীমান্তরক্ষী বাহিনীর টহল। সব সময় একটা উদ্বেগ উৎকণ্ঠার দৃশ্যপট...

চালবাজদের চালবাজি ও খেটে খাওয়া মানুষের দুর্ভোগ

করোনা ,আম্পান ও বন্যায় প্রায় ৪ কোটি মানুষ দ্রারিদ্র্য সীমার নিচে বসবাস করছেন। কর্ম হারিয়ে বিদেশ থেকে ফিরে এসেছেন প্রায় ৮০ হাজার...

শেকল ভাঙার পদযাত্রা এগিয়ে চলুক

ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে দেশব্যাপী অব্যাহত বিক্ষোভ-প্রতিবাদের প্রেক্ষাপটে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার গত সোমবারের মন্ত্রীসভা বৈঠকে ধর্ষণের শাস্তি যাবজ্জীবন কারাদÐের  পাশাপাশি...

Recent Comments