32 C
Dhaka
বৃহস্পতিবার, জুন ২৪, ২০২১

অনলাইন টিভি

Bangladesh
866,877
কোভিড-১৯ সর্বমোট আক্রান্ত
Updated on June 24, 2021 12:01 PM
Homeজীবন সংগ্রামতিস্তার ভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শন: মহাপরিকল্পনার কাজ দ্রুত শুরু করার দাবি

তিস্তার ভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শন: মহাপরিকল্পনার কাজ দ্রুত শুরু করার দাবি

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি: তিস্তা বাঁচাও,নদী বাঁচাও সংগ্রাম পরিষদ সভাপতি নজরুল ইসলাম হক্কানী,সাধারণ সম্পাদক শফিয়ার রহমান গতকাল ৩ জুন বৃহসপতিবার বিকেলে উলিপুর ( কুড়িগ্রাম) উপজেলার চর বজরা এবং সুন্দরগঞ্জ ( গাইবান্ধা) উপজেলার হরিপুরের তিস্তার ভাঙন কবলিত এলাকা সরজমিন পরিদর্শন করেছেন।
পরিদর্শন কালে তিস্তারভাঙনে সর্বস্বহারা জনগন নেতাদের পাশে পেয়ে আবেগ-আপ্লুত হয়ে বলেন,’পাঁচদিন থেকে চর বজরা এবং কাশিমপুর গ্রাম ও বাজার তিস্তার ভাঙনের কবলে বিলিন হয়ে যাচ্ছে।স্হানীয় প্রশাসন ও পানিউন্নয়ন বোর্ডের কোন কর্মকর্তা ভাঙন ঠেকাতে কোন উদ্যোগ নেননি।ভাঙনে ক্ষতিগ্রস্তদের সাহায্যে কেউ এগিয়ে আসেনি। ইতোমধ্যে ৪/৫ দিনে শতাধিক পাকা-কাচা ঘরবাড়িসহ শ’তশ’ত বিঘা জমিজিরাত, গচ্ছিত ধানচাল সব নদীগর্ভে বিলিন হয়ে গেছে।চর বজরা থেকে কাশেমপুর বাজারের সংযোগ রাস্তাটিও নদী খেয়ে ফেলেছে। চর বজরা গ্রামের আবু বকর জানান, ” ৭০ বছর তিনি পাঁচবার নদী ভাঙনের স্বীকার হয়েছেন।কিন্তু মে মাসে তিনি এমন নদী ভাঙন দেখেননি”।অসময়ে নদী ভাঙনের কারণ ব্যাখ্যা করে তিস্তা আন্দোলনের সাথে যুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া স্হানীয় শিক্ষার্থী’রা জানান,” ভাঙন কবলিত এ জায়গা থেকে ৪ কিলোমিটার ভাটিতে তিস্তা ব্রম্মপূত্রে মিশেছে।তিস্তার মূল প্রবাহ এটা নয়।মূল নদী আরো সামনে।ওটাই তিস্তার মূল ও গভীর ধারা।তিস্তার মূল নদী বালুতে ভরাট হয়ে গেছে।পাশাপাশি তিস্তার চরের জমির বালু এক্সক্যাভেটর মিশিন দিয়ে প্রতিদিন উত্তোলন করায় ওইসব জমিতে গভীর খাতের সৃষ্টি হয়েছে।ফলে উজানের পানির ঢল মূল নদীতে ঢুকতে না পেরে পানির ঘূর্ণি খননকৃত খাত দিয়ে ঢুকে পড়ছে চরাঞ্চলের গ্রামগুলির লোকালয়ে।ভাঙছে ঘরদোর- জমিজিরাত- রাস্তা- হাট -বাজার সবকিছুই”।ভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শনকালে এলাকার সর্বস্তরের জনগন সরকারের কাছে তিস্তার ভাঙন ঠেকাতে,বন্যার হাত থেকে তিস্তার চরের কৃষি ও কৃষককে বাঁচাতে ” দ্রুত তিস্তা নদী সুরক্ষায় তিস্তা মহাপরিকল্পনার কাজ শুরু করার দাবি জানান।এবং এক্সক্যাভেটর ও লোকাল ড্রেজারে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তি নিশ্চিতের দাবি তোলেন। পরিদর্শন শেষে ভাঙন কবলিত এলাকারজনগনের সাথে নেতৃবৃন্দ সেখানে এক মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন। অন্যান্য নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ” তিস্তা বাঁচাও নদী বাঁচাও সংগ্রাম পরিষদের স্ট্যান্ডিং কমিটির সদস্য,রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড.তুহিন ওয়াদুদ,বখতিয়ার হোসেন শিশির,মশিউর রহমান এবং স্হানীয় নেতৃবৃন্দ।

সর্বশেষ

×

আমাদের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ