28 C
Dhaka
শনিবার, মে ১৫, ২০২১

অনলাইন টিভি

Bangladesh
779,535
কোভিড-১৯ সর্বমোট আক্রান্ত
Updated on May 15, 2021 4:51 AM
Homeজাতীয়বাংলাদেশে করোনা টিকার প্রথম ডোজ প্রদান বন্ধ ঘোষণা

বাংলাদেশে করোনা টিকার প্রথম ডোজ প্রদান বন্ধ ঘোষণা

নতুন কথা রিপোর্ট: দেশে করোনা টিকার প্রথম ডোজ প্রদান বন্ধের ঘোষণা দেয়া হযেছে। সোমবার (২৬ এপ্রিল) হতে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের নির্দেশ জানিয়ে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন ব্যবস্থাপনা টাস্কফোর্স কমিটির লাইন ডিরেক্টর (এমএনসিএন্ডএইচ) ডা. মো. শামসুল হক স্বাক্ষরিত এক স্মারকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলা হয়েছে সংশ্লিষ্টদের।
স্মারকে বলা হয়েছে, ‘আগামী ২৬ এপ্রিল ২০২১ হতে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত কোভিড-১৯ টিকাদান কার্যক্রমের ১ম ডোজ টিকা প্রদান সাময়িকভাবে বন্ধ থাকবে।’
রবিবার (২৫ এপ্রিল) প্রকাশিত স্মারকটিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সকল জেলার সিভিল সার্জন, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা (সকল সিটি কর্পোরেশন) ও উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তাকে (সকল উপজেলা) নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
এর আগে গতকাল শনিবার ভারত অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ভ্যাকসিন ‘কোভিশিল্ড’ দিতে না পেরে এ দেশেই যৌথ উদ্যোগে ‘কোভ্যাক্সিন’ উৎপাদনের প্রস্তাব দেয়। ঢাকায় ভারতীয় হাইকমিশন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে এসংক্রান্ত একটি ‘নোট ভারবাল’ (কূটনৈতিক বার্তা) পাঠিয়েছে। কোভ্যাক্সিন ভারতীয় বায়োটেকনোলজি প্রতিষ্ঠান ভারত বায়োটেক উদ্ভাবিত করোনার টিকা। ভারতে এই টিকার ‘ফেজ থ্রি ট্রায়াল’ চলছে। গত বুধবার ভারত বায়োটেক ও ইন্ডিয়ান সেন্টার ফর মেডিক্যাল রিসার্চ (আইসিএমআর) বলেছে, এখন পর্যন্ত কোভ্যাক্সিন কভিডের বিরুদ্ধে ৭৮ শতাংশ কার্যকর প্রমাণিত হয়েছে।
তবে টিকার এ সংকট দ্রুত কেটে যাবে বলে মনে করছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা। আজ রবিবার দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম সাংবাদিকদের জানান, আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহেই ভারতের সেরাম থেকে অক্সফোর্ডের ২০ লাখ ডোজ করোনা টিকা আসছে বাংলাদেশে। বাংলাদেশকে ৫ লাখ ডোজ করোনা টিকা উপহার হিসেবে দেবে চীন সরকার। এ ছাড়া বৈশ্বিক উদ্যোগে ফাইজার থেকে পাওয়া যাবে আরো ১ লাখ ডোজ। অন্যদিকে, এ বছরই দেশে শুরু হচ্ছে রাশিয়ার টিকা উৎপাদন।
স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্যমতে,২৪ এপ্রিল পর্যন্ত ৫৭ লাখ ৯৮ হাজার ৮৮০ জনকে টিকার প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছে।
অন্যদিকে গত ৮ এপ্রিল দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া শুরুর পর এ পর্যন্ত ২১ লাখ ৫৫ হাজার ২৯৬ জন এই টিকা নিয়েছেন।
সব মিলিয়ে ৭৯ লাখ ৫৪ হাজার ১৭৬ জনকে করোনা ভাইরাসের টিকা দেওয়া হয়েছে। সে হিসাবে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হাতে এখন টিকা আছে ২২ লাখ ৪৫ হাজার ৮২৪ ডোজ।
করোনা টিকার প্রথম ডোজ প্রদান বন্ধ হয়ে যাচ্ছে আজ। আগামীকাল সোমবার (২৬ এপ্রিল) হতে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে বলে জানা গেছে।
এ বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের নির্দেশ জানিয়ে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন ব্যবস্থাপনা টাস্কফোর্স কমিটির লাইন ডিরেক্টর (এমএনসিএন্ডএইচ) ডা. মো. শামসুল হক স্বাক্ষরিত এক স্মারকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলা হয়েছে সংশ্লিষ্টদের।
স্মারকে বলা হয়েছে, ‘আগামী ২৬ এপ্রিল ২০২১ হতে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত কোভিড-১৯ টিকাদান কার্যক্রমের ১ম ডোজ টিকা প্রদান সাময়িকভাবে বন্ধ থাকবে।’
আজ রবিবার প্রকাশিত স্মারকটিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সকল জেলার সিভিল সার্জন, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা (সকল সিটি কর্পোরেশন) ও উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তাকে (সকল উপজেলা) নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
এর আগে গতকাল শনিবার ভারত অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ভ্যাকসিন ‘কোভিশিল্ড’ দিতে না পেরে এ দেশেই যৌথ উদ্যোগে ‘কোভ্যাক্সিন’ উৎপাদনের প্রস্তাব দেয়। ঢাকায় ভারতীয় হাইকমিশন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে এসংক্রান্ত একটি ‘নোট ভারবাল’ (কূটনৈতিক বার্তা) পাঠিয়েছে। কোভ্যাক্সিন ভারতীয় বায়োটেকনোলজি প্রতিষ্ঠান ভারত বায়োটেক উদ্ভাবিত করোনার টিকা। ভারতে এই টিকার ‘ফেজ থ্রি ট্রায়াল’ চলছে। গত বুধবার ভারত বায়োটেক ও ইন্ডিয়ান সেন্টার ফর মেডিক্যাল রিসার্চ (আইসিএমআর) বলেছে, এখন পর্যন্ত কোভ্যাক্সিন কভিডের বিরুদ্ধে ৭৮ শতাংশ কার্যকর প্রমাণিত হয়েছে।
তবে টিকার এ সংকট দ্রুত কেটে যাবে বলে মনে করছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা। আজ রবিবার দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম সাংবাদিকদের জানান, আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহেই ভারতের সেরাম থেকে অক্সফোর্ডের ২০ লাখ ডোজ করোনা টিকা আসছে বাংলাদেশে। বাংলাদেশকে ৫ লাখ ডোজ করোনা টিকা উপহার হিসেবে দেবে চীন সরকার। এ ছাড়া বৈশ্বিক উদ্যোগে ফাইজার থেকে পাওয়া যাবে আরো ১ লাখ ডোজ। অন্যদিকে, এ বছরই দেশে শুরু হচ্ছে রাশিয়ার টিকা উৎপাদন।
স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্যমতে, গতকাল ২৪ এপ্রিল পর্যন্ত ৫৭ লাখ ৯৮ হাজার ৮৮০ জনকে টিকার প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছে।
অন্যদিকে গত ৮ এপ্রিল দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া শুরুর পর এ পর্যন্ত ২১ লাখ ৫৫ হাজার ২৯৬ জন এই টিকা নিয়েছেন।
সব মিলিয়ে ৭৯ লাখ ৫৪ হাজার ১৭৬ জনকে করোনা ভাইরাসের টিকা দেওয়া হয়েছে। সে হিসাবে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হাতে এখন টিকা আছে ২২ লাখ ৪৫ হাজার ৮২৪ ডোজ।

সর্বশেষ

×

আমাদের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ